1. admin@mathbariasamachar.com : admin :
শিরোনাম :
মঠবাড়িয়ায় কুচক্রী মহলের ইন্ধনে মসজিদ ঘর ভেঙ্গে ফেললো সংখ্যালঘুরা মঠবাড়িয়ায় ইউপি নির্বাচনী সহিংসতায় নারীসহ আহত -৬ নেতৃত্বের প্রতি আস্থা রেখে প্রার্থীতা প্রত্যাহার করলেন ছগির ঝাকঝমক আয়োজনে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করল মঠবাড়িয়ার নট আউট ফুটবল একাডেমি বামনা থানা অফিসার ইনচার্জের সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে উপজেলার সব ইউনিয়নে ব্যাতিক্রমী মহড়া জীবন-জীবিকার বাজেটে প্রত্যাশা ও প্রাপ্তি মঠবাড়িয়ায় দুর্ধর্ষ ডাকাত গ্রেপ্তার – ২ মঠবাড়িয়ায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় -২ নারী সহ আহত -৩ মঠবাড়িয়ায় সংখ্যালগুদের জমি মসজিদের নামে দখলের পায়তারা”সম্প্রদায়িক দাঙ্গার আশঙ্কা মঠবাড়িয়ায় একদিনে দুই গৃহবধূর আত্মহত্যা

মুজিববর্ষে বিশেষ প্রতিবেদন √বঙ্গবন্ধুর সং‌ক্ষিপ্ত জীবনী

  • প্রকাশনা : মঙ্গলবার, ১৬ মার্চ, ২০২১
  • ৩০ বার

নূর হোসাইন মোল্লাঃ  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯২০ সালের ১৭ মার্চ গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়া গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম শেখ লুৎফর রহমান এবং মাতার নাম সায়েরা খাতুন। তাঁর শৈশব এবং কৈশর অতিবাহিত হয় টুঙ্গীপাড়া আর গোপালগজ্ঞে। তিনি ১৯৪১ সালে গোপালগজ্ঞ মিশন স্কুল থেকে ম্যাট্রিক পাশ করেন।অতপর তিনি কলকাতার ইসলামিয়া কলেজে আই,এ, ক্লাসে ভর্তি হন। এ কলেজ থেকে তিনি বি,এ, পাশ করেন। ১৯৪৭ সালের ১৪ আগষ্ট ভারত বিভক্তির পর তিনি ঢাকায় আসেন এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এল,এল-বি ক্লাসে ভর্তি হন। তিনি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, আবদুর রহমান চৌধুরী, আজিজ আহমেদ, মোহাম্মদ তোয়াহা, অলি আহাদ, নঈম উদ্দিন প্রমুখ নিয়ে ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারী তিনি পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্র লীগ গঠন করেন। তিনি১৯৪৮ সালের রাষ্ট্র ভাষা বাংলা আন্দোলনে সক্রিয় অংশ গ্রহণ করেন। ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ গঠিত হলে তিনি যুগ্ম সম্পাদক মনোনীত হন। ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট নির্বাচনে গোপালগঞ্জ আসন থেকে নির্বাচিত হন। এদেশের স্বাধিকার আদায়ের জন্যে ১৯৬৬ সালে আমাদের মুক্তির সনদ ৬ দফা ঘোষণা করেন। পাকিস্তান সরকার ১৯৬৮ সালে তাঁর বিরুদ্ধে আগরতলা যড়যন্ত্র মামলা দায়ের করেন। ১৯৬৯ সালের গণ আন্দোলনের মুখে সরকার ২২ ফেব্রুয়ারী মামলাটি প্রত্যাহার করেন। ২৩ ফেব্রুয়ারী তিনি বঙ্গবন্ধু উপাধিতে ভূষিত হন। ১৯৭০ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করে এবং ১৯৭১ সালের২৫ মার্চ মধ্যরাতের পর অর্থাৎ ২৬ মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। এ রাতেই পাকিস্তান সেনাবাহিনী তাঁকে গ্রেফতার করে মিয়ানওয়ালী কারাগারে বন্দি রাখেন। তিনি তাঁর জীবনে ৪৬৮২ দিন কারাবাস করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট সেনাবাহিনীর কতিপয় বিপথগামী জুনিয়র অফিসার কর্তৃক সপরিবারে নিহত হন।২০২০ সালের ১৭ মার্চ তাঁর শতবর্ষ পূর্তি হয়েছে। আমাদের সৌভাগ্য, তাঁর জন্ম শতবর্ষ উপলক্ষে আমরা মুজিব বর্ষ পালন করছি।২০২০ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালর ১৭ মার্চ পর্যন্ত মুজিব বর্ষের দিনক্ষণ। নানা অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মুজিব বর্ষ পালিত হচ্ছে। বঙ্গবন্ধু ছিলেন খাঁটি বাঙ্গালী মুসলিম। তাঁর আচার-আচরণ এবং জীবনযাপনে বাঙ্গালির ঐতিহ্যবাহী ধারা বিদ্যমান ছিল। তাঁর বেশভূষা ছিল সাধারণ। তিনি বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী হয়েও তিনি বঙ্গ ভবন ও গণ ভবনে থাকেন নি।তিনি ছিলেন রাখাল রাজা, বাঙ্গালীর স্বজন। তিনি ইতিহাসের সন্তান, নিজেই ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন। মুজিব বর্ষের স্মরনিতে আমাদের দেবার কিছুই নেই।আছে শুধু শ্রদ্ধা আর ভালবাসা। হে আল্লাহ, বঙ্গবন্ধুকে জান্নাতুল ফেরদৌস দান করুন।

Facebook

আজকের বাংলা তারিখ

  • আজ রবিবার, ২০শে জুন, ২০২১ ইং
  • ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ (বর্ষাকাল)
  • ৯ই জ্বিলকদ, ১৪৪২ হিজরী

Please Share

More News Of This Category
© All rights reserved © 2017 mathbaria samacher
আইটি সাপোর্ট web Disgine it