বরিশাল

প্রতারণার ফাঁদে কলেজছাত্রী, খোয়ালেন তিন লাখ টাকা

                         মঠবাড়িয়া সমাচার ১২ জানুয়ারি ২০২২ , ১:২৬:০৫ প্রিন্ট সংস্করণ

               

কুয়াকাটা (পটুয়াখালী) পটুয়াখালীরঃ কলাপাড়ায় প্রতারকের খপ্পরে পড়ে আসমা বেগম নামে এক কলেজ শিক্ষার্থীর তিন লাখ ২৩ হাজার ৭শ’ টাকা খোয়া গেছে। একটি বিকাশের দোকান থেকে ওই শিক্ষার্থী টাকা পাঠানোর পর পর মোবাইল নম্বরটি বন্ধ করে দিলে প্রতারণার বিষয়টি ধরা পড়ে। মঙ্গলবার দুপুরের দিকে পৌরশহরের ফেরিঘাট এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। জানা গেছে, আসমা বেগম বরগুনার আমতলী সরকারী কলেজের ডিগ্রি শেষ পর্বের ছাত্রী। তিনি আমতলী উপজেলার সেকেন্দারখালী গ্রামের বাবুল হাওলাদারের মেয়ে। এ ঘটনা ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথে পৌর এলাকায় টক অব দ্যা টাউনে পরিণত হয়। প্রতারণার শিকার আসমা সাংবাদিকদের জানান, তাকে সোমবার দুপুরে ০১৮৯৪২৮১০৪৪ থেকে মোবাইল করে শিক্ষামন্ত্রণালয়ের পরিচয় দিয়ে উপবৃত্তি বাবদ তাকে ১০ লাখ টাকা প্রদান করবে বলে আশ্বাস দেন। তবে তাকে চার লাখ টাকা পাঠাতে হবে বলে শর্ত জুরে দেয়। আসমা সরল বিশ্বাসে রুপ টেলিকম সেন্টার থেকে ৯টি নাম্বারে ৩ লাখ ২৩ হাজার ৭শ’ টাকা বিকাশ করে। পরক্ষণেই ১০ লাখ টাকা আসবে সেই টাকা রুক টেলিকম সেন্টারে পরিশোধ করে দেবে। টাকা সেন্ট হওয়ার পরপরই প্রতারকের মোবাইল নম্বরটি বন্ধ করে দেয় । পরে ওই ছাত্রীকে রুপ টেলিকমের মালিক সুব্রত আটকে রেখে সংশ্লিষ্ট পৌর। কাউন্সিলর মো. তারিকুজ্জামান তারেকের জিম্মায় রাখে। কাউন্সিলর বলেন, ওই শিক্ষার্থীর অভিভাবককে খবর দেয় হয়েছে। রুপ টিলিকমের মালিক সুব্রত ঘরামী জানান, টাকা সেন্ট করার পর তার বোধগম্য হয়। তবে মহিলা সাথে সাথে পরিশোধ করবে বলে বিশ্বাস করে ওই টাকা সেন্ট করেছেন বলে তিনি জানান

আরও খবর

Sponsered content

ব্রেকিং নিউজ