সারাদেশ

ফরিদপুরের মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাচ্ছে ৭ নদীদ খল দুষনে বেহাল অবস্হা

                         মঠবাড়িয়া সমাচার ৩ মার্চ ২০২২ , ১২:৪৯:৪৭ প্রিন্ট সংস্করণ

               

আনোয়ার জাহিদ,ফরিদপুরঃ ফরিদপুর জেলার চার পাশ জুড়ে রয়েছে প্রমওা পদ্মা। প্রধানতঃ আড়িয়াল খা্ঁ, আত্রাই,বিল বিলরুট,মধুমতি,চন্দনা,বারাশিয়া, ভুবনেশ্বর, ও কুমার নদী, জেলার ৯ টি উপজেলাকে কম বেশী আঁকড়ে ধরছে উল্লেখিত নদীগুলো। এক সময়ের প্রমওা পদ্মায়ই এখন ধূ ধূ বালুচর। সদরপুর উপজেলার চরমানাইর, চর হরিরামপুর,

মুন্সুীগঞ্জের মীরকাদিম ও সদরপুরের ভাটী অঞ্চল, চরভদ্রাসনের পিয়াজখালী বাজার এবং হাজিগঞ্জের মোহনা শয়তানখালী হতে ফরিদপুর সিএন্ডবি ঘাট পর্যন্ত প্রায় ৪ কিলোমিটার পদ্মার বুক জুড়ে জেগে উঠছে প্রায় ২০০ টি ডুবোচর। এখনই ইমারত শিল্প নির্মানের ভরা মৌসুম। এই সময়, পদ্মায় ডুবোচরে আটকা পড়ছে ডজন খানেক জাহাজ,বলগেট এবং কাঁচামালবাহী কার্গো।

ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পন্য পরিবনকৃত নৌযান মালিকরা এবং কাঁচামাল শিল্পের ব্যবসায়ীরা। চট্রগ্রাম ও নারায়নগঞ্জ থেকে সিমেন্ট বোঝাই দুই সারেং রহমান এবং করিম ফকির ইনকিলাকে জানান, ব্যবসার সমস্ত। লোকসানের প্রধান কারনই পদ্মায় পানি নাই। শুধু ডুবোচর। এর প্রভাব পড়ছে ফরিদপুরের ৭টি নদীতে। ফলে ফরিদপুর ছোট বড় ৭ টি নদী এখন পানিশূন্য হয়ে গেছে। পদ্মার প্রধান শাখা নদী কুমার সেখানে এখন ধানক্ষেত। আড়িয়াল খাঁ নদীর বুক জুড়ে বালুর মাঠ। পাশা-পাশি কুমার নদী, বারাশিয়া, মধুমতি,চন্দনা,ভুবনেশ্বর দখল করছে প্রভাবশালী দখলদাররা। চলছে দোকান ঘর ও বাসাবাড়ি নির্মানের কাজ। থামানের কেউ নাই।

 ফলে আকারে ছোট হয়ে আসছে নদী। এবং আবর্জনা ও বর্জে নদী ভরাট হওয়ায়, পানি ব্যবহারের অযোগ্য হয়ে পড়ছে। ফলে বসবাসের অনুপযোগী হয়ে পড়ছে নদীর পার্শ্ববর্তী এলাকায়।

অপরদিকে,উল্লেখিত নদীর মধ্যে স্ব স্ব এলাকার ব্যবসায়ী এবং বাসিন্দারা অব্যাহতভাবে ময়লা আবর্জনা এবং ভরাট মাটি ফেলে বাঁশ দিয়ে নদী দখল করে ব্যবসা প্রতিষ্টান নির্মান করায় মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাচ্ছে নদী। দখল ও দুষনে নদীগুলো মৃত প্রায়।

ফরিদপুর সদরের হাজী শরীয়তুল্লা বাজার বেইলি ব্রীজের পুর্বপাড় মিষ্টি ব্যবসায়ীদের নদী দখল এবং সাপ্তাহে দুইদিন হাটের কাঁচাবাজারের ময়লা ফেলা হয় নদীতে।

 পাশা-পাশি শরীয়তুল্লা বাজারের প্রতিদিনের ময়লা আবর্জনা ফেলায়, পুরো নদীটি ভরাট হয়ে গেছে। সাথে ময়লা আবর্জনায় ডুবে গেছে বিগত ৬০ বছর আগের বাজার ঘাটলাটিও। এই নিয়ে কারো কোন মাথা ব্যাথা নাই।

এক সময় পদ্মার যৌবন ছিল। কুমার নদী ভরা ছিল পানিতে। সারা বছরই স্হানীয় জেলেরা মাছ ধরে বাজারে বিক্রি করে জীবন সংসার চালাতো। নদীতে পানি নাই। তাই পেশা পরিবর্তন করে জেলে কার্তিক এখন নাপিত। তার মত এরকম বহুজন পেশা পরিবর্তন করে জীবন চাচ্ছে।

সরেজমিন দেখাযায়, পদ্মার প্রধান শাখা নদীর মুল প্রবাহ মুখ হচ্ছে মদনখালী মোহনা এই প্রধান পানি প্রবাহ অব্যাহত পলি পড়ে ভরাট হয়ে গেছে। পানি প্রবেশের উৎস মুখটিই বন্ধ।

কোটি টাকার অধিক খরচে নির্মান হলো রেগুলেটর সেখানেও পানি শূন্য। প্রশ্ন উঠছে, আগে নদীর মোহনর পলি মাটি অপসারন না করে আরো ১ হাজার কোটি টাকা ব্যয় করলেও কুমার নদীতে পানি আসবে না।

পদ্মার মোহনা মদনখালী পানির উৎস মুখটি খনন করা খুবই জরুরি। মেহন খনন না করে, কুমার নদী খনন করা হয়েছে।কুমার নদী খননে সরকারের কোটি কোটি টাকা খরচ হলেও জনগনের কোন উপকার আসছে না। উপরন্ত পানি শূন্য কুমার নদীতে চলছে ৬০ টি ঘাটলা নির্মানের কাজ।

প্রকাশ্যে নদীর জায়গা দখল করে ডিক্রীরচর টেপপুরাকান্দী এলাকায় প্রতিষ্টিত ৪/৫ জন,ইট ভাটা মালিক ভাটার পিছন অংশে তথা, মদনখালী নদীতে চালাচ্ছেন অব্যাহত মাটি কাটার মহাযজ্ঞ।প্রশ্ন উঠছে, কুমার নদী খননের দায়ীত্বশীল ডিজাইনার নিরব কেন?

উল্লেখিত বিষয়, ইনকিলাবের সাথে কথা হয়, ফরিদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে তিনি বলেন, উল্লেখিত, সকল বিষয় আমরা জেনেছি। সংশ্লিষ্ট সকলকে নিয়েই আমরা শীগ্রই ব্যবস্হা গ্রহন করবো

আরও খবর

Sponsered content

আরও খবর: ঢাকা

                                   

পি কে হালদারকে বাংলাদেশে হস্তান্তরের ইঙ্গিত ইডির

                             
                                   

ফরিদপুরে ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে তৈরি হচ্ছে আ.লীগের সম্মেলন মঞ্চ

                             
                                   

নিউমার্কেটের ব্যবসায়ীদের হামলার শিকার সাংবাদিকরা

                             
                                   

ফেসবুকে নতুন কাপড়ের বিজ্ঞাপন দিয়ে ছেঁড়া কাপড় ডেলিভারি, গ্রেপ্তার ৫

                             
                                   

নিউ মার্কেট এলাকায় সংঘর্ষে সাংবাদিকসহ আহত শতাধিক, থমথমে নিউমার্কেট এলাকা

                             
                                   

ভেরিফিকেশনের জন্য বাসায় যেতে পারবে না পুলিশ

                             
ব্রেকিং নিউজ