বরিশাল

নাম না থাকায় তারেক রহমানের ছবি সংবলিত ব্যানার ছিড়ে ফেললেন বিএনপি সাধারন সম্পাদক রুহুল আমীন দুলাল

                         মঠবাড়িয়া সমাচার ২৮ এপ্রিল ২০২২ , ৮:৫৯:৫৫ প্রিন্ট সংস্করণ

               

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধিঃ গত ২৭ এপ্রিল বুধবার বিএনপি’র চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থতা কামনায় পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার ধানিসাফা ইউনিয়নে ডিগ্রী কলেজ সংলগ্ন নাসির খানের বাড়িতে দোয়া ও ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেন ধানীসাফা ইউনিয়ন ছাত্রদল।উক্ত ইফতার মাহফিলে মঠবাড়িয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি,সাধারন সম্পাদক সহ বিএনপির বিভিন্ন পর্যাযের নেতাদের দাওয়াত দেয়া হয় এবং তারা উপস্থিত হলে যথারীতি ইফতারের আগে আলোচনা অনুষ্ঠান শুরু হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ব্যানারে নাম না থাকায় উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক রুহুল আমীন দুলাল ক্ষিপ্ত হয়ে জিয়াউর রহমান, খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের ছবি সংবলিত ব্যানার নিজেই টেনে ছিড়ে ফেলেন।এ সময় তার সাথে থাকা নেতা কর্মিরা অকথ্য ভাষায় আয়োজক ইউনিয়ন ছাত্রদলের নেতা কর্মিদের গালিগালাজ করতে থাকে, অনুষ্ঠান থেকে একপর্যায়ে উপজেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন দুলাল ও পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি কে এম হুমায়ুন কবির এবং তাদের অনুসারীরা অনুষ্ঠান বয়কট করেন।

পরে অনুষ্ঠিত দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির দায়িত্ব পালন করেন বিএনপি নেতা সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ নজরুল ইসলাম শরিফ। এতে ইউনিয়ন ছাত্রদল নেতা বেলাল খান রুবেল, মোহাম্মদ তো্হা হাওলাদার সহ বিএনপি ও তার অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ সম্পর্কে জানতে চাইলে, মঠবাড়িয়া উপজেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক সম্পাদক আবু বক্কর সিদ্দিক বলেন, ঘটনাটি অত্যন্ত দুঃখজনক। ব্যানারে অন্য কোন নেতার নাম থাকলে তিনি রাগ করতে পারতেন কিন্তু যেহেতু কোন নেতার নাম নেই এবং খালেদা জিয়ার সুস্থতার জন্য ইফতার ও দোয়া মাহফিল সেক্ষেত্রে তার নাম থাকুক কি না থাকুক তারেক রহমানের ছবি সংবলিত ব্যানার ছিঁড়ে ফেলে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অত্যন্ত অন্যায় কাজ করেছেন।জেলা বিএনপি ও কেন্দ্রীয় কমিটি বিষয়টি নজরে নিয়ে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নিবেন বলে দাবি জানিয়েছেন।

আরো জানান, মঠবাড়িয়া পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি কে এম হুমায়ুন কবির বলেন ,দাওয়াত দিয়ে ব্যানারে নাম না দেওয়ায় অনুষ্ঠানে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়, বিষয়টি একান্তই দলীয় বিষয়। বিষয়টি জানতে মঠবাড়িয়া উপজেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক রুহুল আমীন দুলাল এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করতে চাইলে সংযোগ পাওয়া যায়নি।

এ ব্যাপারে মঠবাড়িয়া উপজেলা যুবদল নেতা,আহম্মেদ সোহেল (মামুন মৃধা) বলেন, যদি কেউ সত্যিকার অর্থে জিয়া পরিবার ও বিএনপি কে ভালবাসে তবে সে খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি কামনায় ইফতার ও দোয়া মাহফিলে নিজের নাম ব্যানারে না থাকলেও এমন কান্ড ঘটাতে পারেন না,কোন সুস্থ্য ব্যাক্তির পক্ষে এ ঘৃনিত কাজ করা সম্ভব নয়।আমি তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য জেলা কমিটি ও কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে জোড়ালো অনুরোধ জানাচ্ছি।

আরও খবর

Sponsered content

ব্রেকিং নিউজ