বরিশাল

উপজেলায় মিলছে না ডায়রিয়ার চিকিৎসা

                         মঠবাড়িয়া সমাচার ১৩ মে ২০২২ , ১২:৩৩:২২ প্রিন্ট সংস্করণ

               

ইন্দুরকানীতে বিশুদ্ধ পানির সংকটে ডায়রিয়া ছড়িয়ে পড়েছে। কিন্তু উপজেলায় চিকিৎসাসেবা মিলছে না বলে অভিযোগ রয়েছে। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ইনডোর না থাকায় রোগী ভর্তি করা হচ্ছে না। এ কারণে ডায়রিয়া আক্রান্ত ব্যক্তিদের পিরোজপুর সদর ও খুলনা কলেরা হাসপাতালে ভর্তি করতে হচ্ছে।

আক্রান্ত সদর ইউনিয়ন কৃষক লীগের সভাপতি ছিদ্দিকুর রহমান বৃহস্পতিবার ইন্দুরকানী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে যান। সেখানে সেবা না পেয়ে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি হন। এর আগে ইন্দুরকানী গ্রামের নাছিমা বেগম, বাদশাহ গাজীর মেয়ে মরিয়ম বেগম ইন্দুরকানীতে চিকিৎসা না পেয়ে পিরোজপুর সদরে যান। সেখান থেকে তাদের খুলনা কলেরা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

শুধু সাধারণ মানুষই নয়, মাসখানেক আগে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয় ইন্দুরকানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লুৎফুন্নেসা খানমের শিশুপুত্র। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে তার চিকিৎসা না হওয়ায় বরিশাল শেরেবাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে নেওয়া হয়।

ইন্দুরকানীর পাঁচটি ইউনিয়নের মধ্যে চারটিতেই গভীর নলকূপ বসানো যায় না। কারণ নলকূপে ওঠে লোনা পানি। এ ছাড়া পুকুরের পানি পরিশোধনের বালুর ফিল্টার-পিএসএফের ব্যবস্থাও নেই।

ইন্দুরকানী উপজেলা পরিষদের সামনের খালের সঙ্গে বিভিন্ন বহুতল ভবনের সেপটিক ট্যাঙ্কের পাইপের সংযোগ। খালের দূষিত পানি ফিটকিরি দিয়ে বিশুদ্ধ করে ব্যবহার করছে সবাই।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ননী গোপাল বলেন, বিশুদ্ধ পানির সংকটে পানিবাহিত রোগ ছড়িয়ে পড়ছে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও ডায়রিয়া রোগী ভর্তির ব্যবস্থা নেই।

ইন্দুরকানী ইউএনও লুৎফুন্নেসা খানম জানান, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের জন্য দুটি প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। হাসপাতালে ইনডোর চালুর চেষ্টা চলছে।

আরও খবর

Sponsered content

ব্রেকিং নিউজ